Logo
আজঃ শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

রাজনৈতিক সহিংস কর্মকাণ্ডে দেশের অর্থনীতি ঝুঁকিতে পড়ছে

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১২৭জন দেখেছেন

Image

বিরাজমান বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে বিভিন্ন খাতের ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ, অর্থনীতিবিদ এবং এফবিসিসিআইয়ের সাবেক নেতৃবৃন্দকে নিয়ে মতবিনিময় সভার আয়োজন করে দেশের শীর্ষ বাণিজ্য সংগঠন এফবিসিসিআই। গতকাল মঙ্গলবার এফবিসিসিআইয়ের গুলশান কার্যালয়ে এই মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এফবিসিসিআই সভাপতি মাহবুবুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় চলমান রাজনৈতিক সহিংসতা, ডলার-সংকট, মূল্যস্ফীতি, বিলাসী পণ্যের আমদানি নিয়ন্ত্রণ, ব্যাংক ঋণ, বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ, ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ নিশ্চিতকরণ, এলসিসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। সভায় এফবিসিসিআই সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, বিগত কয়েক বছর যাবত্ দেশে অত্যন্ত স্থিতিশীল রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক পরিবেশ বিরাজ করছে যা ব্যবসা, বাণিজ্য ও অর্থনীতির জন্য অত্যন্ত জরুরি। কিন্তু সম্প্রতি রাজনৈতিক দলগুলোর সহিংস কর্মকাণ্ডের ফলে দেশের ব্যবসা, বাণিজ্য ও বিনিয়োগ ঝুঁকিতে পড়ছে। একই সঙ্গে, তৈরি পোশাক খাতে উদ্দেশ্যমূলকভাবে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা চলছে।

দেশের রাজনৈতিক অস্থিরতা জাতীয় অর্থনীতিকে শঙ্কার দিকে ঠেলে দিচ্ছে উল্লেখ করে এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, বিদ্যমান পরিস্থিতি দেশের সাপ্লাই চেইনকে ভীষণভাবে বিঘ্নিত করছে—যার প্রভাব পণ্যের উত্পাদন, বাজার মূল্য এবং রপ্তানি ও সেবা খাতের ওপরও পড়ছে। এ সময় রাজনৈতিক দলগুলোকে জাতীয় অর্থনীতির স্বার্থে সব ধরনের সহিংস কর্মকাণ্ড পরিহারের আমন্ত্রণ জানান এফবিসিসিআই সভাপতি।

তৈরি পোশাক খাতে শ্রমিক ও কর্মচারীদের চাহিদা অনুযায়ী মজুরি কমিশন গঠন এবং শ্রমিক-মালিক উভয় পক্ষের সঙ্গে আলোচনার ভিত্তিতে মজুরি পুনর্নির্ধারণ করা হয়েছে—যা ইতিবাচক পদক্ষেপ। তা সত্ত্বেও তৈরি পোশাক খাতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা চলছে। প্রকৃত শ্রমিকরা কোনোভাবেই ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত হতে পারে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

ডলার-সংকট সমাধান এবং মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশ ব্যাংককে আরো কার্যকরী ভূমিকা পালনের আহ্বান জানান এফবিসিসিআই সভাপতি। পাশাপাশি শিল্পকারখানায় উত্পাদন ব্যবস্থা অব্যাহত রাখতে নিরবচ্ছিন্ন জ্বালানি সরবরাহ নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতিও আহ্বান জানান তিনি।

এফবিসিসিআইর সাবেক সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিন আহমেদ বর্তমান সহিংস রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে সারা দেশের সব চেম্বার, অ্যাসোসিয়েশনকে সঙ্গে নিয়ে ব্যবসায়ী সংহতি সমাবেশ আয়োজনের জন্য এফবিসিসিআইকে পরামর্শ দেন। এফবিসিসিআইর সাবেক সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম অর্থনীতির এই সংকটের মুহূর্তে রাজনৈতিক সহিংস কর্মসূচি থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানান। পাশাপাশি সরকারের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্তাব্যক্তিদের বিতর্কিত মন্তব্য থেকে বিরত থাকার আহ্বানও জানান তিনি। অর্থনৈতিক সংকট মোকাবিলায় বাংলাদেশ ব্যাংক, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, এনবিআর, কৃষি মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট অংশীজনদের মধ্যে সমন্বয় আরো জোরদার করতে এফবিসিসিআইকে কমিটি গঠনের পরামর্শ দেন তিনি। এছাড়াও বিদ্যমান সহিংস কর্মসূচির বিরুদ্ধে উদ্যোগ নেওয়ার জন্য এফবিসিসিআইকে আহ্বান জানান তিনি।

সভায় এফবিসিসিআইর সাবেক সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন বলেন, ডলারের ওপর চাপ কমাতে পণ্য আমদানির ক্ষেত্রে ব্যবসায়ীদের আরো সচেতন ভূমিকা পালন করতে হবে। প্রয়োজনে আগামী ছয় মাস থেকে এক বছর সময়ে অপ্রয়োজনীয় ও বিলাসী পণ্য আমদানির হার আরো কমিয়ে আনতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। অর্থনৈতিক সংকট থেকে উত্তরণে পণ্য আমদানির ক্ষেত্রে কাটছাঁটের কোনো বিকল্প নেই বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

সম্প্রতি তৈরি পোশাক খাতে সৃষ্ট সহিংস ঘটনায় বহিরাগতরা জড়িত উল্লেখ করে বিজিএমইএ সভাপতি ফারুক হাসান বলেন, প্রকৃত শ্রমিকরা কখনো নিজ কারখানায় আগুন দিতে পারে না। উদ্দেশ্যমূলকভাবে তৈরি পোশাক খাতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা চলছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।


আরও খবর



দীঘির হারানো টাকা উদ্ধার হলো ডিবির সহায়তায়

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৪২জন দেখেছেন

Image

কথিত বিকাশ কর্মকর্তার প্রতারণার ফাঁদে নিজের বিকাশ একাউন্ট থেকে দেড় লাখ টাকা হারিয়েছেন চিত্রনায়িকা প্রার্থনা ফারদিন দীঘি। তবে তার হারানো টাকা উদ্ধার করে ফিরিয়ে দিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (গোয়েন্দা) বিভাগ।

সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর মিন্টো রোডে গোয়েন্দা পুলিশ কার্যালয়ে গিয়ে ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (গোয়েন্দা) মোহাম্মদ হারুন অর রশীদের হাত থেকে উদ্ধার হওয়া টাকা বুঝে নিয়েছেন এই অভিনেত্রী। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন তার বাবা অভিনেতা সুব্রত বড়ুয়া এবং মামা ভিক্টর।

অতিরিক্ত কমিশনার হারুন অর রশীদ বলেন, ‘গত শনিবার দীঘির মোবাইলে একটি অপরিচিত নম্বর থেকে কল আসে। ওই ব্যক্তি নিজেকে বিকাশ অফিসের কর্মী দাবি করেন। এরপর বিকাশ অ্যাকাউন্ট ব্লক হওয়ার তথ্য জানিয়ে ঠিক করে দেওয়ার নামে দীঘির কাছে একটি ওটিপি নম্বর চাইলে সরল মনে সেটা দিয়ে দেন অভিনেত্রী। 

এর কিছুক্ষণ পরই বিকাশ অ্যাকাউন্টের ব্যালেন্স চেক করলে দীঘি দেখতে পান, তার অ্যাকাউন্ট থেকে এক লাখ ৬২ হাজার টাকা উধাও।’  এ ঘটনায় দীঘি শেরে-বাংলা নগর থানা ও ডিবিতে অভিযোগ করেন। মামলার প্রেক্ষিতে রাজধানীর মিরপুর এলাকায় দুই প্রতারককে গ্রেপ্তার করা হয়। উদ্ধার করা হয় হাতিয়ে নেওয়া টাকা।


আরও খবর

যে কারণে টাকা ফিরিয়ে দিলেন জয়া

বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

ঈধিকার পর এবার মিমি

মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24




পুঁজিবাজারে সূচকের ঊর্ধ্বগতি

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৩৫জন দেখেছেন

Image

সপ্তাহের চতুর্থ কার্যদিবস বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচকের ঊর্ধ্বগতির মধ্য দিয়ে লেনদেন চলছে।

এদিন লেনদেন শুরুর আধা ঘণ্টা পর অর্থাৎ সকাল সাড়ে ১০টায় ডিএসইর সাধারণ সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ২৯ পয়েন্ট বেড়ে ৬ হাজার ৪২৩ পয়েন্টে অবস্থান করে। ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক ৫ পয়েন্ট  এবং ডিএসই-৩০ সূচক ৫ পয়েন্ট বেড়ে যথাক্রমে ১ হাজার ৩৯৬ ও ২ হাজার ১৭৬ পয়েন্টে রয়েছে। এই সময়ের মধ্যে লেনদেন হয়েছে ২৩০ কোটি ৩২ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট।

বুধবার এ সময়ে লেনদেন করা কোম্পানিগুলোর মধ্যে ২৪৮টির শেয়ারের দাম বেড়েছে, কমেছে ৫৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৫৩টি কোম্পানির শেয়ারের দাম।

এর আগে লেনদেন শুরুর প্রথম ৫ মিনিটে ডিএসইএক্স সূচক বাড়ে ১২ পয়েন্ট। সকাল ১০টা ১০ মিনিটে সূচক আগের অবস্থান থেকে আরও ৫ পয়েন্ট বেড়ে যায়। এরপর সূচকের ঊর্ধ্বমুখী গতি দেখা যায়। লেনদেন শুরুর ২০ মিনিট পর অর্থাৎ সকাল ১০টা ২০ মিনিটে সূচক আগের দিনের চেয়ে ২১ পয়েন্ট বেড়ে ৬ হাজার ৪১৬ পয়েন্টে অবস্থান করে।

অপরদিকে লেনদেন শুরুর আধা ঘণ্টা পর সকাল সাড়ে ১০টায় চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সিএএসপিআই সূচক ১৮ হাজার ৫৬৭ পয়েন্টে অবস্থান করে। এরপর সূচকের গতি ঊর্ধ্বমুখী দেখা যায়।

এদিন সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৫ কোটি ৪৭ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ সময়ের ৩০টি কোম্পানির দাম বেড়েছে, কমেছে ১৪টি এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৭টি কোম্পানি শেয়ারের দর।


আরও খবর



গভীর রাতে কম্বল নিয়ে মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন মন্ত্রী আব্দুর রহমান এমপি

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৫৪জন দেখেছেন

Image
মো: সজীব মোল্লা : ফরিদপুরের মধুখালীতে যে সময় মানুষ ঘুমায় কম্বল মুড়ি দিয়ে। আর সেই সময় গভীর রাতে কম্বল নিয়ে নির্বাচনী এলাকার ছিন্নমূল মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রহমান এমপি। 

এই শীতে তিনি মধুখালী,বোয়ালমারী ও আলফাডাঙ্গার নেতাকর্মীদের মাধ্যমে বিভিন্ন এতিমখানাসহ প্রত্যন্ত অঞ্চলের অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন শীতবস্ত্র (কম্বল) নিয়ে।

৬ জানুয়ারী মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে মধুখালী উপজেলার মেছড়দিয়াসহ কয়েকটি আশ্রয়ণ প্রকল্পের (গুচ্ছগ্রাম) শতাধিক অসহায় ছিন্নমুল মানুষকে নিজহাতে কম্বল তুলে দেন মন্ত্রী আব্দুর রহমান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মামনুন আহমেদ অনিক, প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা.সুদেব কুমার দাস, মধুখালী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো.মিরাজ হোসেন,উপজেলা আওয়াামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ রেজাউল হক বকু প্রমুখ। কম্বল পাওয়া মেছড়দিয়া আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসিন্দা শাহিদা বেগম জানান, দিনের বেলায় শীতের তীব্রতা কমে গেলেও রাতে বাড়ে শীতের তীব্রতা। শীতের শেষ মুহূর্তে শীতের বেগ রাতে একটু বেশি হয়। এই শীতের রাতে মন্ত্রী সাহেবের দেওয়া কম্বল আমাদের অনেকটাই উপকারে আসবে,ধন্যবাদ তাকে। দীর্ঘায়ু কামনা করি। এক প্রতিক্রিয়ায় মন্ত্রী মোঃ আব্দুর রহমান বলেন, ফরিদপুর-১ আসনে আমার নির্বাচনী জনপদের তিন উপজেলার প্রায় ১০/১২ হাজার অসহায় মানুষকে শীত মৌসুমে শীতবস্ত্র (কম্বল) বিভিন্ন মাধ্যমে বিতরণ করা হয়েছে।এখনো বিতরণ চলমান রয়েছে।আজকে বোয়ালমারী উপজেলার কাদিরদীতে এসেছিলাম একটি সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে। সেখান থেকে ভাবলাম নিজের হাতে ছিন্নমূল মানুষের হাতে কিছু কম্বল দিয়ে যাই। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত এলাকার অসহায় মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে এবং সুখ-দুঃখে পাশে থাকতে চাই।

আরও খবর



সঙ্গীকে বলা ঠিক নয় যেসব কথা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১১জন দেখেছেন

Image

সম্পর্কে সুন্দর রাখতে সততা, স্বচ্ছতা বজায় রাখা দরকার। এগুলো সম্পর্ককে আরও মজবুত করে তোলে। পরস্পরের প্রতি নির্ভরশীলতা, বিশ্বাসযোগ্যতা বাড়ায়। তবে কখনও কখনও কোনো কোনো সত্য সম্পর্কে দুরত্ব তৈরি করে বলেই মনে করছেন থেরাপিস্টরা। যেমন-

প্রাক্তনের সঙ্গে তুলনা: কথায় কথায় প্রাক্তনের বিষয়ে কথা বলা বা তুলনা আপনার বর্তমান সঙ্গীর আত্মবিশ্বাসকে ক্ষুন্ন করতে পারে। পুরনো সেই স্মৃতিগুলো নিজের কাছেই রাখুন। আপনার রোমান্টিক ইতিহাসের প্রতিটি দিক খুব বেশি প্রকাশের প্রয়োজন নেই। 

অতীতে বিশ্বাস হারিয়ে ফেলার ঘটনা : আগে কী হয়েছিল, সেসব নিয়ে বেশি কথা না বলাই ভালো। যতক্ষণ না বিষয়টি প্রাসঙ্গিক হয়ে ওঠে ততক্ষণ পর্যন্ত আগ বাড়িয়ে এসব নিয়ে কথা বলবেন না। মনে রাখবেন, সন্দেহ সম্পর্কে অস্বস্তি তৈরি করতে পারে। আপনি যদি অতীতে কোনও কারণে সম্পর্কে ঠকে থাকেন তাহলে সেটাকে শিক্ষা হিসাবে গ্রহণ করুন।

চেহারা নিয়ে অপ্রয়োজনীয় সমালোচনা: সঙ্গীর চেহারা বা শারীরিক গঠন যাই হোক তা নিয়ে অন্যদের সঙ্গে তুলনা করবেন না। এ নিয়ে অযৌক্তিক সমালোচনা করাও ঠিক নয়। ওজন, বয়স, বা ব্যক্তিগত সাজসজ্জার অভ্যাস সম্পর্কে মন্তব্য করার আগে সচেতন থাকুন।

পরিবারের ঘনিষ্ঠ সদস্যদের সম্পর্কে নেতিবাচক মতামত: সঙ্গীর পরিবারের ঘনিষ্ঠ সদস্যদের সম্পর্কে কখনও নেতিবাচক কথা বলবেন না, সেটা যতই সত্যি হোক না কেন। এতে দুটো মানুষের মধ্যে দূরত্ব তৈরি হতে পারে।

এসব ছাড়াও সম্পর্কের ভবিষ্যৎ নিয়ে অতিরিক্ত চিন্তা করবেন না। এতে সম্পর্কের জটিলতা বাড়ে। পাশাপাশি নিজের বন্ধুদের ব্যক্তিগত বিষয় সঙ্গীকে জানাবেন না। এতে পরবর্তী সময়ে আপনি সমস্যায় পড়তে পারেন। 


আরও খবর



আগামী রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে থাকবে : বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৫৬জন দেখেছেন

Image

বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু জানিয়েছেন, রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ, বাজারে নিরবিচ্ছন্ন পণ্য সরবরাহ, বাজার মনিটরিসহ সরকার নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। আশা করা যায়, সরকারের এই পদক্ষেপগুলো বাস্তবায়নের ফলে আগামী রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

তিনি বলেন, বাজারে নিরবিচ্ছন্ন পণ্য সরবরাহ করা গেলে কেউ আর কারসাজি ও মজুতদারি করে দ্রব্যমূল্য বাড়াতে পারবে না। তখন পণ্যমূল্য একটা যৌক্তিক পর্যায়ে থাকবে। দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে সরকার এ ব্যবস্থাটি নিশ্চিত করতে চাচ্ছে। এ ছাড়া আসন্ন রমজান উপলক্ষে সরকার টিসিবি’র মাধ্যমে এক কোটি প্রান্তিক পরিবারকে চাল, ডাল, তেল, খেজুরসহ ৫ ধরণের পণ্য সরবরাহ করবে। এতেও সাধারণ মানুষের মধ্যে কিছুটা স্বস্তি ফিরে আসবে।

সরকারি দলের অপর সদস্য আনোয়ার হোসেন খানের তারকা চিহ্নিত এক প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, ভোক্তা-স্বার্থ সংরক্ষণ ও ভোক্তা অধিকার বিরোধী কাজ প্রতিরোধকল্পে জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর কর্তৃক দেশব্যাপী নিয়মিত বাজার মনিটরিং করা হয়ে থাকে। চলতি ২০২৩-২৪ অর্থবছরে ৫ হাজার ৩৭৪টি বাজার তদারকি কার্যক্রম পরিচালনার মাধ্যমে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনের অধীন বিভিন্ন অপরাধে ১১ হাজার ৬৮৫টি প্রতিষ্ঠানকে ৬ কোটি ৭৬ লাখ ৪০ হাজার টাকা জরিমানা আরোপ ও আদায় করা হয়েছে।


আরও খবর