Logo
আজঃ শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

জন্মদিনে স্বামীকে যে বার্তা দিলেন ঐশ্বরিয়া

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮৭জন দেখেছেন

Image

কয়েক মাস ধরেই শোনা যাচ্ছিল ভাঙন ধরেছে অভিষেক বচ্চন ও ঐশ্বরিয়ার সংসারে। ইতিমধ্যে মেয়েকে নিয়ে নাকি স্বামীর বাড়ি ছেড়েছেন ঐশ্বরিয়া। মেয়ে আরাধ্যা বচ্চন ও মা বৃন্দা রাইকে নিয়ে অন্যত্র থাকেন তিনি। এমন খবরও চাউর হয়, শ্বশুর অমিতাভ বচ্চনও তাঁর ছেলের বউয়ের ইনস্টাগ্রাম আইডি আনফলো করে দিয়েছেন।

তবে বিচ্ছেদের জল্পনা অব্যাহত থাকলেও এখনো পর্যন্ত এ প্রসঙ্গে কোনো মন্তব্য করেননি পরিবারের কেউই। চুপ রয়েছেন ঐশ্বরিয়াও। তবে গতকাল ছিলো অভিষেক বচ্চনের জন্মদিন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকেই শুভেচ্ছা জানিয়েছেন অভিনেতাকে।

কিন্তু সারাদিন নীরব ছিলেন ঐশ্বরিয়া। এতে আরো জোরালো হয় তাদের সংসার ভাঙার গুঞ্জন। তবে এদিন সন্ধ্যায় স্বামীর জন্য ‘শান্তি’ কামনা করেন এই অভিনেত্রী। ঐশ্বরিয়া তার ইনস্টাগ্রামে একটি ছবি পোস্ট করেন।

তাতে মেয়ে আরাধ্য ও অভিষেকের সঙ্গে ফ্রেমবন্দি হয়েছেন ঐশ্বরিয়া। এ ছবির ক্যাপশনে তিনি লেখেন, ‘তোমাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা। সৃষ্টিকর্তা তোমাকে সুখ, ভালোবাসা, শান্তি ও সুস্বাস্থ্য দান করুক। উজ্জ্বল হও। এ পোস্টের কমেন্ট বক্সে একটি মন্তব্য করেন ঐশ্বরিয়া।

তাতে এ অভিনেত্রী লেখেন, ‘আমি আনন্দিত যে, আরাধ্য দেখতে তার বাবা কিংবা মায়ের মতো নয়। কিন্তু বাবা-মায়ের মিশ্রণ। তার নিজস্ব ইমেজ রয়েছে।’ দিন শেষে অভিষেককে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানানো বিষয়টি ইতিবাচকভাবে দেখছেন না নেটিজেনরা। একজন মন্তব্য করেছেন, ‘তিনি তার স্বামীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। কিন্তু পোস্টে প্রিয় স্বামী বা অন্য কিছু লেখেননি।’ আরেকজন লেখেন, ‘মনে হয় তাদের বিচ্ছেদের গুঞ্জন সত্যি।’ এমন অসংখ্য মন্তব্য ভেসে বেড়াচ্ছে কেমেন্ট বক্সে।

ঐশ্বরিয়া-অভিষেক অনেক পুরোনো বন্ধু। ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে একসঙ্গে সিনেমায় কাজ করেছেন তারা। ‘ঢাই আকসার প্রেম কা’ সিনেমায় প্রথম একসঙ্গে কাজ করেন তারা। এখান থেকেই তাদের বন্ধুত্বের সূচনা। যা পরবর্তীতে প্রেমে রূপ নেয়। ২০০৭ সালের ২০ এপ্রিল বিয়ে করে সংসার জীবন শুরু করেন অভিষেক-ঐশ্বরিয়া। ২০১১ সালের ১৬ নভেম্বর এই দম্পতির ঘর আলো করে জন্ম নেয় কন্যা আরাধ্য।


আরও খবর

যে কারণে টাকা ফিরিয়ে দিলেন জয়া

বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

ঈধিকার পর এবার মিমি

মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24




চবি ছাত্রলীগে ফের উত্তেজনা

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৩২জন দেখেছেন

Image

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) শাখা ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে ফের উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে দুপক্ষের কর্মীদের মধ্যে বাদানুবাদের খবর পাওয়া গেছে। এ সময় নিজ নিজ হল থেকে প্রতিপক্ষকে লক্ষ্য করে উস্কানিমূলক কথাবার্তা বলে তারা।

বিশ্ববিদ্যালয় পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ কবির হোসেন বলেন, কিছুটা উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। তবে অন্যান্য দিনের মতো সংঘর্ষের অবস্থা হয়নি। আমাদেরকে কোনো অ্যাকশনে যেতে হয়নি। আমরা সতর্ক অবস্থানে আছি।

এর আগে বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার শাখা ছাত্রলীগের তিন উপগ্রুপের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে অন্তত ৪০ জন আহত হয়। কুপিয়ে গুরুতর জখম করা হয় বেশ কয়েকজনকে। সার্বিক ঘটনা তদন্তে একটি কমিটি করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। প্রতিবেদন পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন প্রক্টর ড. নূরুল আজিম সিকদার।


আরও খবর



বাড়ি ফেরার পথে যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৪৫জন দেখেছেন

Image

যশোরের অভয়নগর উপজেলায় যুবলীগের এক নেতাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। তার নাম মুরাদ হোসেন। রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত পৌনে ১০টার দিকে উপজেলার নওয়াপাড়া বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মুরাদ নওয়াপাড়ার সরদারপাড়ার শাহাবুদ্দিন ছেলে। তিনি নওয়াপাড়া পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ড শাখা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন অভয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আকিকুল ইসলাম।

স্থানীয়রা ও পুলিশ জানিয়েছে, রাতে নওয়াপাড়া বাজার থেকে তরফদার পাড়ার বাড়ির দিকে হেঁটে যাচ্ছিলেন মুরাদ। পথে কবরস্থানের কাছে তার ওপর হামলা হয়। ছুরিকাঘাতে তিনি মারাত্মক জখম হন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে তাকে নেওয়া হয় অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। পরে সেখান থেকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

কে বা কারা মুরাদকে হত্যা করেছে তাৎক্ষণিকভাবে তা জানা যায়নি। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের ধরতে কাজ শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওসি আকিকুল ইসলাম।


আরও খবর



হাফেজ বশির আলজেরিয়ার পর ইরানে প্রথম

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১৩জন দেখেছেন

Image

বাংলাদেশের ক্ষুদে কোরআনের হাফেজরা বিশ্বব্যাপী দারুণ সাফল্য অর্জন করেছে একের পর এক। বিশেষ করে মধ্যপ্রাচ্যসহ বিভিন্ন মুসলিম দেশে কোরআন প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে তারা এই সাফল্য অর্জন করছে।

এবার ইরানে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতায় বিশ্বজয় করল বাংলাদেশের ক্ষুদে হাফেজ বশির আহমাদ। বুধবার রাতে তার শিক্ষক ও দেশের স্বনামধন্য হিফজ-শিক্ষক শায়খ নেছার আহমাদ আন নাছিরি বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, গত সোমবার ইরানে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতায় ৩০ পারা গ্রুপে প্রথম স্থান অর্জন করেছে হাফেজ বশির। বশির শায়খ আন নাছিরি প্রতিষ্ঠিত মারকাযুত তাহফিজ ইন্টারন্যাশনাল মাদরাসার ছাত্র। মাদরাসাটি রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর কাজলাতে অবস্থিত।

মাত্র ১০ দিন আগেই আলজেরিয়ার রাজধানী আলজিয়ার্সে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতায় তৃতীয় স্থান অর্জন করে হাফেজ বশির। পাশাপাশি ২০২১ সালে এনটিভিতে প্রথম হয়েছিল এবং ২০২২ সালে হুফফাজুল কোরআন ফাউন্ডেশনের প্রতিযোগিতায়ও তার প্রথম স্থান অর্জন করার রেকর্ড রয়েছে।

শায়খ নেছার আহমাদ আন নাছিরি হাফেজ বশিরসহ তার সকল ছাত্র ও মাদরাসার জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন।


আরও খবর



জাবিতে কবিতা আবৃত্তি ও সঙ্গীতের মাধ্যমে ধর্ষণের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী সমাবেশ

প্রকাশিত:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৪২জন দেখেছেন

Image

সাভার (ঢাকা) প্রতিনিধি : কবিতা আবৃত্তি ও সঙ্গীতের মাধ্যমে ধর্ষণের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে সমাবেশ করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) শিক্ষার্থীরা।

শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারী) সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন চত্বরে এ প্রতিবাদী সাংস্কৃতিক সমাবেশ আয়োজন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোর প্ল্যাটফর্ম ‘জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোট’। সমাবেশে বক্তরা পাঁচটি দাবি জানায়।

দাবিগুলো হলো- চলমান ধর্ষণের ঘটনার সুষ্ঠু সুরাহা এবং জড়িত সকলকে দ্রুত বিচারের আওতায় আনা, যৌন নিপীড়ন বিরোধী সেল কার্যকর করা ও  পূর্বের সকল অভিযোগ নিষ্পত্তি করা, বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা ও দায়িত্ব অবহেলাকারীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া,  হল থেকে অছাত্রদের বিতাড়িত করে সিট সংকট নিরসন করা ও ক্ষমতাসীন ছাত্র সংগঠনের দৌরাত্ম্য নিরসনে পদক্ষেপ নেওয়া।

সমাবেশে আয়োজকরা জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ে চলমান সাংস্কৃতিক সংকট এবং ধর্ষণ ও নিপীড়নের বিরুদ্ধে মানুষকে গর্জে ওঠার আহ্বান জানানোর জন্যই এই আয়োজন করা হয়েছে।

সমাবেশে জাহাঙ্গীরনগর থিয়েটারের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজ ইসলাম মেঘ বলেন, ’ধর্ষণ ও অন্যান্য অপরাধ একদিনে ঘটেনি। তিলে তিলে সব অপরাধ একত্রিত হয়ে ধর্ষণে পরিণত হয়েছে। ধর্ষণের পিছনে দায়ী ক্ষমতাসীন ছাত্রসংগঠনের মদদ। ধর্ষণ ও মাদকমুক্ত ক্যাম্পাস গড়ে তুলতে হলে ক্ষমতাসীনদের ছাত্রসংগঠনের বিরুদ্ধে আমাদের  দাঁড়াতে হবে। আমাদের আন্দোলন শুধু ধর্ষণের বিরুদ্ধে নয়, আমাদের আন্দোলন অছাত্র, মাদক ও সেই প্রশাসনের বিরুদ্ধে যারা মাহমুদুর রহমান জনির মতো যৌন নিপীড়কের আশ্রয়দাতা।


আরও খবর



হবিগঞ্জে ১ কোটি ২৭ লাখ কেজি চা উৎপাদন

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৬৩জন দেখেছেন

Image
লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি : হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার লস্করপুরে ভ্যালিতে ২০২৩ সালে চায়ের রেকর্ড উৎপাদন হয়েছে, ২০২২ সালের চেয়ে ২০২৩ সালে ৪১ শতাংশ উৎপাদন বেড়ে চায়ের রেকর্ড উৎপাদন হয়েছে প্রায় ১ কোটি ২৭ লাখ কেজি। অনুকূল আবহাওয়া থাকায় এবং রোগবালাই কম থাকায় ভ্যালির ১৭টি চা বাগানে গেল বছর এমন উৎপাদন বেড়েছে। কিন্তু চায়ের মূল্য কমে যাওয়ায় ভ্যালির অনেক বাগান লোকসানে পড়েছে চা বাগান ও ভ্যালি সূত্রে জানা যায়, ২০২২ সালে চা শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধির আন্দোলনসহ নানা কারণে ভ্যালির ১৭ চা বাগানে উৎপাদন হয়েছিল ৯৮ লাখ ৯৭ হাজার ৪৩১ কেজি চা। কিন্তু অনুকূল আবহাওয়া ও রোগবালাই কম থাকা এবং বাগান কর্তৃপক্ষের নানা পদক্ষেপের কারণে ২০২৩ সালে চায়ের মওসুমে ভ্যালিতে উৎপাদন বেড়ে দাঁড়ায় ১ কোটি ২৬ লাখ ৯১ 

হাজার ৭৯৪ কেজি যা গত বছরের তুলনায় প্রায় ২৮ লাখ কেজি বা ৪১.৯২ শতাংশ বেশি। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি উৎপাদন বেড়েছে ডানকান ব্রাদার্সের চান্দপুর চা বাগানে। এ বাগানে উৎপাদন ২০২২ সালের তুলনায় ১শ’ শতাংশ বেড়েছে। লস্করপুর চা বাগানে ৬৭ শতাংশ এবং রেমা চা বাগানে ৫০ শতাংশ চা বেশি উৎপাদন হয়েছে। সবগুলো বাগানে উৎপাদন বাড়লেও ২০২৩ সালে ভ্যালির একমাত্র নোয়াপাড়া চা বাগানে ৩ শতাংশ চা কম উৎপাদন হয়েছে। একই ভাবে ২০২১ সালে ভ্যালিতে উৎপাদন হয়েছিল ১ কোটি ২ লাখ কেজি বিগত কয়েক বছর ধরেই ভ্যালিতে চায়ের উৎপাদন কোনো বছর কম এবং কোন বছর বাড়ছিল। তবে ২০১৯ সালেও ভ্যালিতে চায়ের উৎপাদন প্রথমবার বেড়ে দাঁড়িয়েছিল ১ কোটি ২২ লাখ কেজি। ২০২২ সালে ভ্যালিতে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ২১৪ সেন্টিমিটার হলে ২০২৩ সালে ভ্যালিতে বৃষ্টিপাত হয়েছিল ২০৮ সেন্টিমিটার।

কিন্তু চা উৎপাদনে অনূকুল আবহাওয়া ও তাপমাত্রা সহনীয় মাত্রায় ছিল। ফলে উৎপাদন বেড়েছে আনুপাতিক হারে। দেশে চায়ের আনুপাতিক উৎপাদন বাড়লেও বাড়েনি চায়ের মূল্য। গত এক দশক ধরেই চায়ের নিলামে গড় প্রতি কেজি ২শ’ টাকার কাছাকাছি উঠানামা করছে। এতে ভ্যালির কোন কোন চা বাগান লোকসান দিচ্ছে। বিশেষ করে দেউন্দি টি কোম্পানির ৪টি বাগান গত তিন বছর ধরেই লোকসান দিয়ে এখন বাগান চালাতে পারছেনা। শ্রমিকদের এরিয়া ও বেতনা ভাতা বকেয়া পড়ছে। ভ্যালির সভাপতি এনটিসি’র মালিকানাধীন চণ্ডিছড়া চা বাগানের ম্যানেজার ইউসুফ খান জানান, আবহাওয়া ও বৃষ্টিপাতের পরিমাণ আনুপাতিক এবং সকলের সমন্বিত চেষ্টার কারণে ভ্যালিতে উৎপাদন বেড়েছে। তবে চায়ের মূল্য এখন অনেক কম তাই চা শিল্প ক্ষতির আশঙ্কায় রয়েছে।


আরও খবর