Logo
আজঃ শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

আর্থিক প্রতিবেদন নিরীক্ষার জন্য ৩৯ প্রতিষ্ঠানের তালিকা প্রকাশ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮৬জন দেখেছেন

Image

ব্যাংক ও নন ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর আর্থিক প্রতিবেদন নিরীক্ষার জন্য যোগ্য ৩৯ অডিট ফার্মের তালিকা প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। গতকাল সোমবার বাংলাদেশ ব্যাংক বৈধ অডিট ফার্মগুলোর হালনাগাদ তালিকা প্রকাশ করে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তালিকায় যোগ্য অডিট ফার্মগুলো হলো এ কাশেম অ্যান্ড কোং, একনাবিন, আহমদ জাকের অ্যান্ড কোং, আহসান মনঞ্জুর অ্যান্ড কোং, অরুন অ্যান্ড কোম্পানি, আজিজ হালিম খায়ের চৌধুরী, বাসু ব্যানার্জি নাথ অ্যান্ড কোং, চৌধুরী ভট্টাচার্য অ্যান্ড কোং, দাস চৌধুরী দত্ত অ্যান্ড কোং, দেওয়ান নজরুল ইসলাম অ্যান্ড কোং, জি কিবরিয়া অ্যান্ড কোং, হুদা ভাসি চৌধুরী অ্যান্ড কোং, হক ব্যানার্জি দাস অ্যান্ড কোং, হাওলাদার ইউনুস অ্যান্ড কোং, হোসাইন ফরহাদ অ্যান্ড কোং, ইসলাম আফতাব কামরুল অ্যান্ড কোং, ইসলাম জাহিদ অ্যান্ড কোং, কে এম আলম অ্যান্ড কোং, খান ওয়াহাব শফিক রহমান অ্যান্ড কোং, এম জে আবেদিন অ্যান্ড কোং এবং এম এম রহমান অ্যান্ড কোং।

যোগ্য অডিট ফার্মগুলোর তালিকায় আরও রয়েছে এম জেড ইসলাম অ্যান্ড কোং, এমএবিএস অ্যান্ড জে পার্টনার্স, মাহফেল হক অ্যান্ড কোং, মালেক সিদ্দিকী ওয়ালী, মাসিহ মুহিত হক অ্যান্ড কোং, এমআরএইচ দে অ্যান্ড কোং, নূরুল ফারুক হাসান অ্যান্ড কোং, পিনাকী অ্যান্ড কোম্পানি, রহমান রহমান হক (কেপিএমজি), এস কে বড়ুয়া অ্যান্ড কোং, শফিক বসাক অ্যান্ড কোং, স্নেহাশিষ মাহমুদ অ্যান্ড কোং, সাইফুল শামসুল আলম অ্যান্ড কোং এবং জোহা জামান কবির রশীদ অ্যান্ড কোং।

দ্য ইনস্টিটিউট অব চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্টস অব বাংলাদেশের (আইসিএবি) তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠান থেকে সাধারণত দুই বছর পরপর যোগ্য অডিট ফার্মের নাম প্রকাশ করে বাংলাদেশ ব্যাংক। এর আগে ২০২৩ সালের শেষের দিকে ৩১টি যোগ্য অডিট ফার্মের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছিল। তখন আগের তালিকার অনেক প্রতিষ্ঠান অনিয়মে জড়িত থাকার কারণে বাদ পড়েছিল। গতকালের প্রকাশিত তালিকায় বাদ পড়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্য থেকে আটটি প্রতিষ্ঠানকে যোগ্য হিসেবে তালিকায় স্থান করে দিয়েছে আর্থিক খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।


আরও খবর



বেড়েছে ইসরাইল-হিজবুল্লাহর পাল্টা-পাল্টি হামলা ; দুই পক্ষের শক্তির তুলনা

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৩৫জন দেখেছেন

Image

লেবাননের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহ ও ইসরাইলি বাহিনীর মধ্যে চলতি সপ্তাহে আন্তঃসীমান্ত সংঘাত ধীরে ধীরে বৃদ্ধি পাওয়ায় তা ক্রমশ পুরোদমে যুদ্ধে রূপ নিতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। বুধবার লেবানন থেকে নিক্ষিপ্ত একটি রকেট ইসরাইলের উত্তরাঞ্চলীয় শহর সাফেদে আঘাত হানলে ২০ বছর বয়সী এক নারী সৈন্য নিহত ও অন্তত পক্ষে ৮ জন আহত হয়।

জবাবে, ইসরাইল বিমান হামলা চালিয়ে দক্ষিণ লেবাননে কমপক্ষে ১০ জনকে হত্যা করে। এদের মধ্যে একজন সিরীয় নারী ও তার দুই সন্তানসহ অন্য একটি পরিবারের ৪ জন সদস্য ছিল। বাকি তিনজন ছিল হিজবুল্লাহ যোদ্ধা। আহত হয়েছে আরো অন্তত ৯ জন। 

৭ অক্টোবর ইসরাইলের দক্ষিণাঞ্চলে হামাসের হামলার পর গাজায় যুদ্ধ এবং এই আন্তঃসীমান্ত সহিংসতার সূত্রপাত হয়। এখানে উল্লেখ করা যেতে পারে যে- যুক্তরাষ্ট্র ১৯৯৭ সালে হামাসকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে চিহ্নিত করে। ইসরাইল, মিশর, ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং জাপানও হামাসকে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী হিসেবে বিবেচনা করে।

হিজবুল্লাহ বুধবারের হামলার দায় স্বীকার করেনি। তবে গাজায় যুদ্ধবিরতি না হওয়া পর্যন্ত হামলা চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। আরো উত্তেজনা বাড়ার আশঙ্কার পরিপ্রেক্ষিতে দু'পক্ষের অস্ত্রাগারের তুলনামূলক পর্যালোচনা নিচে দেয়া হলো-

হিজবুল্লাহর সামরিক সক্ষমতা- আরব বিশ্বের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আধাসামরিক বাহিনীগুলোর একটি হিজবুল্লাহ। একটি শক্তিশালী অভ্যন্তরীণ কাঠামোর পাশাপাশি একটি বিশাল অস্ত্রাগারও রয়েছে বাহিনীটির। ইরানের সমর্থন রয়েছে বাহিনীটির প্রতি। সিরিয়ার ১৩ বছরের সংঘাত থেকে প্রাপ্ত অভিজ্ঞতা তাদের যোদ্ধাদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে সহায়তা করেছে।

হিজবুল্লাহর নেতা হাসান নাসরুল্লাহর মতে, দলটির যোদ্ধার সংখ্যা এক লাখ বলা হলেও অন্যান্য সদস্যদের মতে তা অর্ধেকেরও কম। ইসরাইল চায় সীমান্ত এলাকা থেকে হিজবুল্লাহ তার বিশেষ রাদওয়ান বাহিনী প্রত্যাহার করে নিক যাতে করে উত্তরাঞ্চলের শহর ও গ্রামগুলো থেকে পালিয়ে আসা হাজার হাজার ইসরাইলি নিজেদের বাস্থানে ফিরে যেতে পারে।

ওয়াশিংটনের চিন্তক গোষ্ঠী সেন্টার ফর স্ট্র্যাটেজিক অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল স্টাডিজের মতে, হিজবুল্লাহর কাছে বেশিরভাগ ছোট, বহনযোগ্য এবং ভূমি থেকে ভূমিতে নিক্ষেপণযোগ্য আর্টিলারি রকেটের বিশাল অস্ত্রাগার রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইলের ধারণা, লেবাননে হিজবুল্লাহ ও অন্যান্য গোষ্ঠীর কাছে দেড় লাখ ক্ষেপণাস্ত্র ও রকেট রয়েছে। হিজবুল্লাহ নির্ভুলভাবে নিয়ন্ত্রিত ক্ষেপণাস্ত্র নিয়েও কাজ করছে।

হিজবুল্লাহ এর আগেও ইসরাইলে ড্রোন নিক্ষেপ করেছে এবং ২০০৬ সালে ভূমি থেকে সমুদ্রে নিক্ষেপণযোগ্য ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে ইসরাইলের একটি যুদ্ধ জাহাজে আঘাত হানে। হিজবুল্লাহ বাহিনীর কাছে অ্যাসল্ট রাইফেল, ভারি মেশিনগান, রকেট পরিচালিত গ্রেনেড, রাস্তায় পাতার জন্য বোমা এবং অন্যান্য অস্ত্র রয়েছে।

ইসরাইলের সামরিক সক্ষমতা- দীর্ঘদিন ধরে যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে ইসরাইলের সামরিক বাহিনী বার্ষিক তিন শ’ তিরিশ কোটি ডলার সহায়তা পেয়ে আসছে। তাছাড়াও ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা প্রযুক্তির জন্য ৫০ কোটি ডলার সহায়তাও করছে পায় তারা।

বৃহত্তর মধ্যপ্রাচ্যে অস্ত্রের দিক দিয়ে অন্যতম সুসজ্জিত দেশ ইসরাইল। এর বিমান বাহিনীতে রয়েছে অত্যাধুনিক আমেরিকান এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান; আমেরিকান তৈরি প্যাট্রিয়টসহ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যাটারি; আয়রন ডোম রকেট-প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা। ইসরাইলের সাঁজোয়া কর্মী বহনের যান, ট্যাঙ্ক এবং রাস্তায় যেকোনো লড়াইয়ের উপযোগী ড্রোন এবং অন্যান্য প্রযুক্তির একটি বহর রয়েছে।

ব্রিটিশ চিন্তক গোষ্ঠী ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজের মতে, ইসরাইলের ১ লাখ ৭০ হাজার সেনা সক্রিয় দায়িত্ব পালন করছে। তাছাড়া, যুদ্ধের জন্য তাদের আনুমানিক সক্ষমতার তিন-চতুর্থাংশ, প্রায় ৩ লাখ ৬০ হাজার রিজার্ভ সৈন্য মোতায়েন করা আছে। যুদ্ধের এই পঞ্চম মাসে রিজার্ভ এই সৈন্যদের অধিকাংশই দেশে ফিরে গেছে। ইসরাইলের হাতে দীর্ঘদিন ধরে অঘোষিত পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচিও বজায় রয়েছে।

অধিকাংশ বিশ্লেষকই মনে করেন যে- হিজবুল্লাহ কিংবা ইসরাইল কারো কোনো পূর্ণাঙ্গ যুদ্ধে যাবার ইচ্ছা নেই তবুও এ রকম আশংকা রয়েছে যে- হিসেবে ভুল হলে সংঘাত বৃদ্ধি পেতে পারে। সীমান্তে উত্তেজনা কমানোর চেষ্টায় সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে যুক্তরাষ্ট্র, ফ্রান্স ও অন্যান্য দেশ তাদের কূটনীতিকদের পাঠিয়েছে।


আরও খবর

ভেনেজুয়েলায় সোনার খনি ধসে নিহত ২৩ জন

বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




নারী আসনে মনোনয়ন ফরম তুললেন নায়িকারা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮৬জন দেখেছেন

Image

দ্বাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনে দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু হয়েছে। এরই মধ্যে আগ্রহীরা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ভিড় করছেন। মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে গুলিস্তানের বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রি করছে আওয়ামী লীগ। এদিন মনোনয়ন ফরম তুললেন অপু বিশ্বাস, সোহানা সাবা ও নিপুন আক্তার।

সংবাদমাধ্যম অনুযায়ী, মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টায় রাজধানীর গুলিস্তানে অবস্থিত আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয় থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন অপু বিশ্বাস। এ সময় তিনি বলেন, রাজশাহী বিভাগের বগুড়া জেলা থেকে মনোনয়নপত্র কিনলাম আমি। আমার এলাকার মানুষ আমাকে অনেক সহযোগিতা করেছেন। দোয়া রাখবেন, আমি যেন এলাকার মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারি। আর আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন বাস্তবায়নে যেন কাজ করতে পারি।

তিনি আরও বলেন, নিজেকে রাজনীতির সঙ্গে জড়াতে পারা এবং মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষে থাকতে পারা আমার জন্য সৌভাগ্য বলে মনে করি। মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করলাম। বাকিটা মহান আল্লাহ তাআলার ইচ্ছা। এদিকে সকাল সোয়া ১০টার দিকে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে অবস্থিত আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের দোতলা থেকে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন চিত্রনায়িকা সোহানা সাবা ।

ফরম সংগ্রহ শেষে সোহানা সাবা বলেন, আমার বাবা একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। তিনি ১৩ বছর বয়সে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়েছেন। তিনি শুধু আওয়ামীলীগপন্থিই ছিলেন না, তিনি দেশপ্রেমিক ছিলেন। দেশের কথা ভাবলে আওয়ামী লীগের কথা ভাবতে হবে। 

এটা ছাড়া অন্য কোনো উপায় নেই। আমরা খুবই ভাগ্যবান যে টানা ১৫ বছর ধরে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আছে, ইনশাল্লাহ আরও পাঁচ বছরও থাকবে। সেজন্য আমি অবশ্যই চাই আওয়ামী লীগ থেকে প্রার্থী হতে।

এর আগে রাজনীতি করেছেন কি না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সত্যি বলতে আমি খুব সংক্রিয়ভাবে রাজনীতি করিনি। কিন্তু নানা সময় নির্বাচনী প্রচারণায় আমি ছিলাম। আমি কখনো ভাবিনি যে, রাজনীতি করবো।

আওয়ামী লীগের ত্যাগী নেত্রীদের বাদ দিয়ে কেন আপনাকে মনোনয়ন দেওয়া হবে, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমিও কাজ করতে চাই বা করতে পারি। অনেকেই আমার থেকে বয়সে ও কাজে সিনিয়র আছেন। তার মানে এই নয় যে, নতুনরা কাজ করবে না বা এগিয়ে যাবে না। 

নতুনদেরও সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে। সব জেনারেশন যদি হাতে হাত রেখে একসঙ্গে কাজ করে, তাহলে দেশের জন্য ভালো কিছুই হবে। মনোনয়ন পেলে কিভাবে মানুষের সেবা করবেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা নতুন জেনারেশন দেশ-বিদেশ ঘুরে বেড়াই। আমরা যা দেখি দেশকে ও দেশের মানুষকে সেভাবে দেখতে চাই।

সাধারণ মানুষের মতোই আমি হাঁটা-চলা করি। পাঁচ টাকার জিনিস আমি ফুটপাত থেকে কিনি। সেই অভিজ্ঞতাও আমার আছে। আমি সত্যিকারের খেটেখাওয়া মানুষ। আমি মানুষের জন্যই কাজ করবো। এদিকে সংরক্ষিত নারী আসনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন ফরম কিনেছেন অভিনেত্রী নিপুন আক্তার। তিনি সঙ্গে রিয়াজকেও নিয়ে গিয়েছিলেন সেখানে। 

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয় সূত্র বলছে, সকাল ১০টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত দেশের ৮টি বিভাগের ১৭১টি মনোনয়ন ফরম বিক্রি হয়েছে। এর মধ্যে প্রথম এক ঘণ্টায় সর্বোচ্চ মননের ফর্ম বিক্রি হয়েছে ঢাকা বিভাগে, ৫০টি। প্রথম ঘণ্টায় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মনোনয়ন ফরম বিক্রি হয়েছে চট্টগ্রাম বিভাগ থেকে, ৩৪টি। এ ছাড়া রাজশাহী বিভাগে ২২টি, খুলনা বিভাগের ১৭টি, ময়মনসিংহ বিভাগের ১৬টি, রংপুর বিভাগের ১৪টি, বরিশাল বিভাগের ১৩টি এবং সিলেট বিভাগে ৫টি মনোনয়ন ফরম বিক্রি হয়েছে।


আরও খবর

যে কারণে টাকা ফিরিয়ে দিলেন জয়া

বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

ঈধিকার পর এবার মিমি

মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24




অপহরণ মামলায় জেল, ভালোবাসা দিবসে আদালতে বিয়ে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | ২৬জন দেখেছেন

Image

প্রথমে প্রেম, তারপর পালিয়ে বিয়ে। যার প্রেক্ষিতে কনের পিতা বরের নামে করেন অপহরণ মামলা। সেই মামলায় কারাগারে যেতে হয় সেই যুবককে। সেখানে কেটে যায় তার দুই মাসের বেশি সময়। 

অবশেষে মুক্তি মিলে তবে...ভালোবাসা দিবসে আদালতে বিয়ে হলো বর ও কনের। ঝিনাইদহের আদালত চত্বরের ক্যান্টিনে আইনজীবী, পুলিশ ও আদালতের প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে বিয়ে হয়েছে মহেশপুর উপজেলার স্কুলছাত্রী জেসমিন খাতুন আর গোপালপুর গ্রামের জুবায়ের হোসেনের। এ সময় বর পুলিশের হেফাজতে ছিলেন আর বাইরে অপেক্ষা করছিল কনের পরিবার।

বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে এমন ঘটনা ঘটেছে ঝিনাইদহের আদালত চত্ত্বরে। বিয়ের পর সেখানে মিষ্টি বিতরণ করা হয়। জেসমিনকে অপহরণের দায়ে জুবায়েরের জামিন আবেদনে আদালতে এমন রায় দিয়েছেন।

আদালত জানায়, মহেশপুর উপজেলার জুকা গ্রামে আত্মীয়র বাড়িতে আসা-যাওয়ার সূত্র ধরে ওই গ্রামের স্কুলছাত্রী জেসমিন খাতুনের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে পার্শ্ববর্তী গোপালপুর গ্রামের যুবক জুবায়ের হোসেনের। কয়েক মাস তাদের মোবাইলে প্রেম চলে। বিষয়টি জানাজানি হলে তদের পরিবারের লোকেরা মেনে নেয় না। ফলে গত বছরের ১৭ ডিসেম্বর জেসমিনকে পালিয়ে বিয়ে করেন জুবায়ের। এ ঘটনায় ২৪ ডিসেম্বর জেসমিনের বাবা বাদি হয়ে মহেশপুর থানায় জুবায়েরসহ আরও ৪ জনের নামে অপহরণ মামলা করলে গ্রেপ্তার হন জুবায়ের।

পরে বিষয়টি নিয়ে উভয় পরিবার মীমাংসা করে বিয়েতে রাজি হয়ে বুধবার আদালতে জুবায়েরের জামিন আবেদন করেন। ঝিনাইদহের সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. নাজিমুদৌলা শর্ত দেন ‘৫ লাখ টাকা কাবিনে জেসমিনকে বিয়ে করলে জুবায়ের জামিন দেওয়া হবে’। এই শর্তে রাজি হয়ে আদালতে বিয়ে হয় জুবায়ের ও জেসমিনের।

বর জুবায়ের হোসেন বলেন, ভালোবাসা দিবসে আমার প্রিয় মানুষটাকে পেয়েছি এতেই আমি খুব খুশি। ২ মাস জেল খাটার পর তাকে পেলাম। আপনারা আমাদের জন্য দোয়া করবেন। মামলার আসামি পক্ষের আইনজীবী অ্যাড. ইশারত হোসেন খোকন বলেন, আদালতের নির্দেশে ৫ লাখ টাকা কাবিনে উভয় পক্ষের উপস্থিতিতে বিয়ে হয়েছে।


আরও খবর



আগামী ১৬ দিন বিকল্প পথে চলতে হবে মাওয়া এক্সপ্রেসওয়ে ব্যবহারকারীদের

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০জন দেখেছেন

Image

সড়ক ও জনপথ (সওজ) অধিদপ্তর পোস্তগোলা সেতুর কার্যক্ষমতা বাড়াতে দুই সপ্তাহের সংস্কার কাজ শুরু করেছে। ফলে ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেসওয়ে ব্যবহাকারী যানবাহনগুলোকে আজ বৃহস্পতিবার থেকে ৮ মার্চ পর্যন্ত বিকল্প পথ ব্যবহার করতে বলেছে সওজ। 

এই সময়টাতে মহাসড়কে চলাচলকারী যানবাহনগুলোকে বিকল্প সড়ক ব্যবহার করতে বলেছে সড়ক ও জনপথ (সওজ) অধিদফতর। এরইমধ্যে এ বিষয়ে অধিদফতরের ঢাকা জোনের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলীর কার্যালয় থেকে একটি গণবিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে।

সওজের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মো. সবুজ উদ্দিন খান সই করা বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে ৮ মার্চ পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান (এন-৮: ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়ে) মহাসড়কের তৃতীয় কিলোমিটারে অবস্থিত বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী বুড়িগঙ্গা সেতু-১ এর (পোস্তগোলা সেতু) দুটি গার্ডারের মেরামত ও রেট্রোফিটিং কাজ করা হবে।

এই মেরামত কাজের জন্য আগে ১৯ ফেব্রুয়ারি থেকে ৬ মার্চ তারিখ নির্ধারণ করা হলেও এসএসসি পরীক্ষার জন্য তা পরিবর্তন করা হয়। নতুন নির্ধারিত ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে ৮ মার্চ পর্যন্ত সময়ে সেতুটি দিয়ে ট্রাক-পিকআপ ভ্যান, কাভার্ডভ্যান, কনটেইনারবাহী লরিসহ সবধরনের ভারী যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে। আর ২৪ ও ২৬ ফেব্রুয়ারি এবং ১, ৪ ও ৮ মার্চ- এই পাঁচ দিন বাস, মাইক্রোবাস, প্রাইভেটকার, সিএনজি, অটোরিকশাসহ সবধরনের হালকা যানবাহন চলাচলও বন্ধ থাকবে। এই পাঁচ দিন সবাইকে বিকল্প সড়ক ব্যবহারের অনুরোধ করা হয়েছে।

ভারী যানবাহন ও বড় বাসের জন্য বিকল্প সড়কের নির্দেশনাও দিয়েছে সওজ। এতে বলা হয়েছে, যাত্রাবাড়ী থেকে ছেড়ে আসা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাসড়কগামী যানবাহন ধোলাইপাড় বাসস্ট্যান্ড ও বাবুবাজার সেতু ব্যবহার করে তেঘড়িয়া ইন্টারসেকশন হয়ে মহাসড়কে প্রবেশ করবে। আর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাসড়ক হতে যাত্রাবাড়ীগামী যানবাহন তেঘড়িয়া ইন্টারসেকশন-বাবুবাজার সেতু ব্যবহার করে ধোলাইপাড় হয়ে যাত্রাবাড়ী প্রবেশ করবে।


আরও খবর

অমর ২১শে ফেব্রুয়ারির ইতিহাস

বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ভেনেজুয়েলায় সোনার খনি ধসে নিহত ২৩ জন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১৬জন দেখেছেন

Image

দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ভেনেজুয়েলায় সোনার খনিতে মারাত্মক ধসের ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন আরও অনেকে। হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার দেশটির বলিভার প্রদেশের জঙ্গলে বুল্লা লোকা নামে পরিচিত উন্মুক্ত ওই সোনার খনিতে মাটির দেয়াল ধসে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এসময় ওই খনিটিতে অন্তত ২০০ শ্রমিক কাজ করছিলেন।

স্থানীয় কর্মকর্তা ইওরগি আর্কিনিগা বুধবার বার্তাসংস্থা এএফপিকে বলেছেন, দেশের বলিভার প্রদেশের জঙ্গলে বুল্লা লোকা নামে পরিচিত খোলা গর্ত থেকে প্রায় ২৩টি মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। বেসামরিক নিরাপত্তা উপমন্ত্রী কার্লোস পেরেজ অ্যাম্পুয়েদা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এক্সে এই ঘটনার একটি ভিডিও প্রকাশ করেছেন এবং ধসের ঘটনায় নিহতের সংখ্যাকে ‘বিশাল’ বলে উল্লেখ করেছেন। যদিও তিনি নিহতের কোনও সংখ্যা উল্লেখ করেননি।

ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, একটি উন্মুক্ত খনির অগভীর পানিতে কর্মরত লোকদের ওপর ধীরে ধীরে মাটির একটি প্রাচীর ভেঙে পড়ছে। কেউ কেউ ঘটনার সময় সেথান থেকে পালাতে সক্ষম হলেও অনেকে আবার তাতে চাপা পড়েন। কর্মকর্তাদের মতে, প্রায় ২০০ জন লোক সেসময় খনিতে কাজ করছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে। যেখানে এই খনিটি অবস্থিত সেখানে পৌঁছাতে হলে নিকটতম শহর লা প্যারাগুয়া থেকে সাত ঘণ্টার নৌকায় ভ্রমণ করতে হয়।

বলিভার প্রদেশের নাগরিক নিরাপত্তা বিষয়ক সেক্রেটারি এডগার কোলিনা রেয়েস বলেছেন, আহতদের আঞ্চলিক রাজধানী সিউদাদ বলিভারের একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। এই অঞ্চলটি লা প্যারাগুয়া থেকে চার ঘণ্টা দূরত্বে এবং রাজধানী কারাকাসের ৭৫০ কিলোমিটার (৪৬০ মাইল) দক্ষিণ-পূর্বে অবস্থিত।

রেয়েস বলেছেন, পরিস্থিতি বিবেচনা করে সামরিক, দমকল বাহিনী এবং অন্যান্য সংস্থাগুলো ‘আকাশপথে ওই এলাকায় চলে যাচ্ছে’। তিনি বলেন, অনুসন্ধানে সহায়তার জন্য কারাকাস থেকে উদ্ধারকারী দলও পাঠানো হচ্ছে। বলিভার অঞ্চল সোনা, হীরা, লোহা, বক্সাইট, কোয়ার্টজ এবং কোল্টান সমৃদ্ধ। রাষ্ট্রীয় খনি ছাড়াও এই অঞ্চলে অবৈধভাবে এসব মূল্যবান ধাতু উত্তোলনের বিকাশমান শিল্পও রয়েছে।


আরও খবর